কিতাব-আত-তাওহীদ (আল্লাহর তাওহীদ)

কিতাব আত তাওহীদআবূ সুমাইয়া মতিউর রহমান

তাওহীদ হল ইসলামের মূল ভিত্তি। জান্নাত লাভের চাবিকাঠি। এবং তাওহীদের বিপরীত হল শিরক। শিরক যাবতীয় আমল বরবাদকারি জাহান্নামে যাবার কারণ।মহান আল্লাহ বলেন: إِنَّ اللَّهَ لَا يَغْفِرُ أَن يُشْرَكَ بِهِ وَيَغْفِرُ مَا دُونَ ذَٰلِكَ لِمَن يَشَاءُ ۚ وَمَن يُشْرِكْ بِاللَّهِ فَقَدِ افْتَرَىٰ إِثْمًا عَظِيمًا “নিঃসন্দেহে আল্লাহ তাকে ক্ষমা করেন না, যে লোক তাঁর সাথে শরীক করে। তিনি ক্ষমা করেন এর নিম্ন পর্যায়ের পাপ, যার জন্য তিনি ইচ্ছা করেন। আর যে লোক অংশীদার সাব্যস্ত করল আল্লাহর সাথে, সে যেন অপবাদ আরোপ করল।“ [সুরা নিসা -৪৮ ] আর তাই আল্লাহর বিশুদ্ধ তাওহীদের দাওয়াতের প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করে শাইখ মুহাম্মাদ বিন সুলায়মান আত-তামিমি(রাহিমাহুল্লাহ) আল্লাহর তাওহীদের উপর এই অমূল্য গ্রন্থটি রচনা করেন। এতে লেখক (রাহিমাহুল্লাহ) তাওহীদের অর্থ ও ফাযিলত, তাওহীদের বিপরীত শিরক এর প্রকারভেদে এর ভয়াবহতা সহ আরো অনেক বিষয়ে আলোচনা করেছেন। আর এরই ধারাবাহিক আলোচনা দেয়া হল অডিও রুপে।

কিতাব আত তাওহীদের ভুমিকা – ১ কিতাব আত তাওহীদের ভুমিকা – ২
অধ্যায়-১ [তাওহীদ সমস্ত ইবাদাতের মূল] অধ্যায়-২ [তাওহীদের মর্যাদা এবং এর ফলে যেসব পাপ মোচন হয়] – ১ অধ্যায়-২ [তাওহীদের মর্যাদা এবং এর ফলে যেসব পাপ মোচন হয়] – ২
অধ্যায়-৩ [তাওহীদ প্রতিষ্ঠাকারী বিনা হিসেবে জান্নাতে যাবে] – ১ অধ্যায়-৩ [তাওহীদ প্রতিষ্ঠাকারী বিনা হিসেবে জান্নাতে যাবে] – ২ অধ্যায়-৩ [তাওহীদ প্রতিষ্ঠাকারী বিনা হিসেবে জান্নাতে যাবে] – ৩
অধ্যায়-৪ [শিরকের ভয়] – ১ অধ্যায়-৪ [শিরকের ভয়] – ২ অধ্যায়-৫ [লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ এর সাক্ষ্যবানীর প্রতি আহবান]
অধ্যায়-৬ [তাওহীদ ও লা-ইলাহা-ইল্লাল্লাহ এর সাক্ষ্যবানীর ব্যাখ্যা] অধ্যায়-৭ [বালা-মুসিবাত, বিপদ-আপদ ইত্যাদি দূর করার জন্য তাগা, বালা, সুতা ইত্যাদি ব্যবহার করা] অধ্যায়-৮ [যে ব্যাক্তি কোন গাছ, পাথর ইত্যাদি দ্বারা বরকত অর্জন করতে চায়]
অধ্যায়-৯ [আল্লাহ ছাড়া অন্যের নামে জবাই করার সম্পর্কে] অধ্যায়-১০ [যেখানে গায়রুল্লাহের নামে জবাই করা হয় সেখানে আল্লাহর নামে জবাই করা নিষেধ]
অধ্যায়-১১ [আল্লাহ ব্যতিত অন্যাকারো উদ্দেশ্যে মানত করা শিরক] – ১ অধ্যায়-১১ [আল্লাহ ব্যতিত অন্যাকারো উদ্দেশ্যে মানত করা শিরক] – ২ অধ্যায়-১২ [আল্লাহ ব্যতিত অন্য কারো নিকট আশ্রয় কামনা করা শিরক]
অধ্যায়-১৩ [আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো কাছে আর্তনাদ করা বা দু’আ করা] অধ্যায়-১৪ [অক্ষমকে আহবান করা শিরক] – ১ অধ্যায়-১৪ [অক্ষমকে আহবান করা শিরক] – ২
অধ্যায়-১৫ [মালায়িকাদের প্রতি আল্লাহর ওয়াহী অবতরণের ভীতি] অধ্যায়-১৬ [শাফায়াত- সুপারিশ]
অধ্যায়-১৭ [হিদায়াত দানকারী একমাত্র আল্লাহ] – ১ অধ্যায়-১৭ [হিদায়াত দানকারী একমাত্র আল্লাহ] – ২
অধ্যায়-১৮ [বনী আদামের কুফুরী এবং তাদের দ্বীন পরিত্যাগের করার কারণ নেককারদের ব্যাপারে বাড়াবাড়ি করা সম্পর্কে] – ১ অধ্যায়-১৮ [বনী আদামের কুফুরী এবং তাদের দ্বীন পরিত্যাগের করার কারণ নেককারদের ব্যাপারে বাড়াবাড়ি করা সম্পর্কে] – ২ অধ্যায়-১৯ [নেককার লোকের কবরে আল্লাহর ইবাদাত করার ক্ষেত্রে যদি কঠোরতা আসে তাহলে নেককার ব্যাক্তির ইবাদাত করার ক্ষেত্রে কঠোরতা]
অধ্যায়-২০ [নেককারদের কবরে বাড়াবাড়ি করলে আল্লাহকে বাদ দিয়ে মুর্তির ইবাদাত করা হয়] অধ্যায়-২১ [মুহাম্মাদ(সঃ) কতৃক তাওহীদ সংরক্ষন ও শিরকের পথ রুদ্ধকরণ] অধ্যায়-২২ [এই উম্মাতের কিছু লোক মুর্তিপুজা করে]
অধ্যায়-২৩ [যাদু] অধ্যায়-২৪ [যাদুর শ্রেণি বিভাগ] – ১ অধ্যায়-২৪ [যাদুর শ্রেণি বিভাগ] – ২
অধ্যায়-২৫ [গণক ও ভবিষৎবক্তাদের বর্ণনা] – ১ অধ্যায়-২৫ [গণক ও ভবিষৎবক্তাদের বর্ণনা] – ২ অধ্যায়-২৬ [নুশরাহ বা প্রতিরোমূলক ব্যবস্থা] # অধ্যায়-২৭ [কুলক্ষন সম্পর্কীয় বর্ননা]
অধ্যায়-২৮ [জ্যোতির্বিদ্যা সম্পর্কিত শরীয়াতের বিধান] অধ্যায়-২৯ [নক্ষত্রের উসীলায় বৃষ্টি কামনা করা]
অধ্যায়-৩০ [আল্লাহ তা’আলার ভালোবাসা দ্বীনের স্তম্ভ] – ১ অধ্যায়-৩০ [আল্লাহ তা’আলার ভালোবাসা দ্বীনের স্তম্ভ] – ২
অধ্যায়-৩১ [ভয়ভীতি শুধুমাত্র আল্লাহর জন্য] – ১ অধ্যায়-৩১ [ভয়ভীতি শুধুমাত্র আল্লাহর জন্য] – ২ অধ্যায়-৩২ [একমাত্র আল্লাহর উপরি ভরসা করা]
অধ্যায়-৩৩ [আল্লাহ তা’আলার পাকড়াও থেকে নিশ্চিন্ত ] অধ্যায়-৩৪ [তাকদীরের উপর ধৈর্যধারন করা ঈমানের অংগ] – ১ অধ্যায়-৩৪ [তাকদীরের উপর ধৈর্যধারন করা ঈমানের অংগ] – ২
অধ্যায়-৩৫ [রিয়া-প্রদর্শনের ইচ্ছা] অধ্যায়-৩৬ [শুধুমাত্র দুনিয়াবী স্বার্থে কোন কাজ করা] – ১ অধ্যায়-৩৬ [শুধুমাত্র দুনিয়াবী স্বার্থে কোন কাজ করা] – ২
অধ্যায়-৩৬ [শুধুমাত্র দুনিয়াবী স্বার্থে কোন কাজ করা] – ৩ অধ্যায়-৩৭ [যে ব্যাক্তি আল্লাহর হালালকৃত জিনিষকে হারাম করল আর হারামকৃত বিষয়কে হালাল করল সে তার মন বা প্রবৃত্তিকে রব হিসেবে নিল] – ১ অধ্যায়-৩৭ [যে ব্যাক্তি আল্লাহর হালালকৃত জিনিষকে হারাম করল আর হারামকৃত বিষয়কে হালাল করল সে তার মন বা প্রবৃত্তিকে রব হিসেবে নিল] – ২
অধ্যায়-৩৮ [ঈমানের দাবিদার কতিপয় লোকের অবস্থা] – ১ অধ্যায়-৩৮ [ঈমানের দাবিদার কতিপয় লোকের অবস্থা] – ২ অধ্যায়-৩৯ [আল্লাহর আসমা ও সিফাতের অস্বীকারকারীদের পরিণাম]
অধ্যায়-৪০ [আল্লাহর নিয়ামাত অস্বীকারকারীর পরিণাম] অধ্যায়-৪১ [শিরকের কতিপয় গোপনীয় অবস্থা] # অধ্যায়-৪২ [আল্লাহর নামে কসম করে সন্তুষ্ট না থাকা] অধ্যায়-৪৩ [আল্লাহ ও আপনি যা চেয়েছেন বলার হুকুম]
অধ্যায়-৪৪ [যে ব্যাক্তি যামানেকে গালি দেয় সে আল্লাহকে কষ্ট দেয়] # অধ্যায়-৪৫ [কাযীউল কুযাত বা মহা বিচারক নামকরণ করা] অধ্যায়-৪৬ [আল্লাহর নাম সমুহের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের ও সম্মানার্থে নামের পরিবর্তন করা]
অধ্যায়-৪৭ [আল্লাহ, কুর’আন ও রসুল সম্পর্কিত কোন বিষয় নিয়ে খেল-তামাশা করা] অধ্যায়-৪৮ [আল্লাহর তা’আলার নেয়ামাতের নাশোকরী করা অহংকার এর লক্ষন অনেক বড় অপরাধ]
অধ্যায়-৪৯ [সন্তানাদি পাওয়ার পর আল্লাহর সাথে অংশীদার করা] অধ্যায়-৫০ [আসমাউল হুসনা এর বর্ননা]
অধ্যায়-৫১ [আল্লাহর উপর শান্তি বর্ষিত হোক বলা যাবে না] অধ্যায়-৫২ [হে আল্লাহ তোমার মর্জি হলে আমাকে মাফ করো!] # অধ্যায়-৫৩ [আমার দাস-দাসী বলা যাবে না]
অধ্যায়-৫৪ [আল্লাহর ওয়াস্তে সাহায্যে চাইলে বিমুখ না করা] অধ্যায়-৫৫ [বি ওয়াজহিল্লাহ- বলে একমাত্র জান্নাত ছাড়া কিছুই চাওয়া যায় না] # অধ্যায়-৫৬ [বাক্যের মধ্যে ‘যদি’ শব্দ ব্যবহার করা] অধ্যায়-৫৭ [বাতাসকে গালি দেয়া নিষেধ]
অধ্যায়-৫৮ [আল্লহ তা’আলার ফয়সালা সম্পর্কে খারাপ ধারনা করা নিষেধ] অধ্যায়-৫৯ [তাক্বদীরের অস্বীকারকারীদের পরিণাম]-১ অধ্যায়-৫৯ [তাক্বদীরের অস্বীকারকারীদের পরিণাম]-২
অধ্যায়-৬০ [ছবি অংকনকারীদের পরিণাম] অধ্যায়-৬১ [অধিক কসম খাওয়া সম্পর্কে শরীয়াতের বিধান] অধ্যায়-৬২ [আল্লাহ ও রাসূলের(সঃ) জিম্মাধীন সম্পর্কিত বিষয়]
অধ্যায়-৬৩ [আল্লাহর ইচ্ছাধীন বিষয়ে কসম করার পরিণতি] অধ্যায়-৬৪ [আল্লাহর মাধ্যমে তাঁর সৃষ্টির নিকট সুপারিশ কামনা হারাম]
অধ্যায়-৬৫ [রসুল(সঃ) কতৃক তাওহীদ সংরক্ষন ও শিরকের মূলঊটপাটন] অধ্যায়-৬৬ [আল্লাহর বড়ত্ব ও উচ্চ মর্যাদার বর্ননা]