মুয়াত্তা – ইমাম মালেক (রহঃ)

মুয়াত্তা-মালিক

ইমাম মালিক ইবনে আনাস (রহ.) আরবের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ধিকাংশ ইতিহাসবিদ একমত যে তিনি হিজরি ৯৩ সনে জন্মগ্রহণ করেন এবং ইমাম আবু হানিফা (রহ.)-এর চেয়ে ১৩ বছরের ছোট। শাহ্ ওয়ালীউল্লাহ (রহ.)-এর মতে ইমাম মালিক (রহ.) সংগৃহীত হাদিসের মধ্যে ‘মুয়াত্তা’ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং যথার্থ হাদিস সংকলন।
পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্তের পরই তিনি হাদিসগুলোর যথার্থতা সম্পর্কে নিঃসন্দেহ হয়েছিলেন। প্রথমে মুয়াত্তায় ১০ হাজারের বেশি হাদিস সংকলিত হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে এই সংখ্যা এক হাজার ৭২০টিতে হ্রাস করা হয়। হাদিসের নির্ভরযোগ্যতা সম্পর্কে বিস্তারিত অনুসন্ধান ও বিশ্লেষণের পরই ইমাম মালিক (রহ.) ‘মুয়াত্তা’ সংশোধন করার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। ইমাম মালিক (রহ.) একজন সেরা আইনবিদও ছিলেন। তিনি দীর্ঘ ৬০ বছর মদিনায় বিভিন্ন জটিল বিষয়ের ওপর শরিয়তের ব্যাখ্যা প্রদানের মাধ্যমে সমস্যার নিষ্পত্তি করেছেন।
ইমাম মালিকের মর্যাদা এবং তাঁর জ্ঞান ও প্রজ্ঞার পরিপূর্ণতা সম্পর্কে মদিনার সর্বস্তরের আলেম, বিশেষজ্ঞ এবং শায়খদের মধ্যে কোনো বিতর্ক ছিল না। এককথায় তিনি ছিলেন সর্বজন মান্য। এ ব্যাপারে ইমাম মালিকের বিনয় ও সতর্কতাও কম ছিল না। যত দিন পর্যন্ত প্রথম শ্রেণীর স্বীকৃত ৭০ জন আলেম-বিশেষজ্ঞ তাঁর দক্ষতা-যোগ্যতার স্বীকৃতিস্বরূপ ফতোয়া ঘোষণা করেননি, তত দিন তিনিও উচ্চতর এ আসনে নিজে গিয়ে বসেননি। তাঁর চরিত্রে বিনয় অত্যন্ত স্পষ্টভাবে প্রমাণিত এবং উদ্ভাসিত হয়ে ওঠে।
মুয়াত্তা-মালিক খন্ডঃ ১ মুয়াত্তা-মালিক খন্ডঃ ২